অবশেষে ভেঙ্গেই গেল শোয়েব মালিক-সানিয়া মির্জার ১২ বছরের সংসার

এতদিন ভারত-পাকিস্তানের সবচেয়ে শক্তিশালী সেলিব্রিটি দম্পতি মনে করা হতো সানিয়া মির্জা এবং শোয়েব মালিককে। প্রতি মুহূর্তে তাদের নিয়ে নানা কৌতূহল, জল্পনা-কল্পনা ডানাও মেলে। তবে সেসব কিছুই গুঞ্জন বলে শোনা গিয়েছিল এতদিন। এবার ঘরের ভেতরের খবর এলো বাইরে। জানা গেল, ডিভোর্সের পথ বেছে নিয়েছেন সেলিব্রিটি এ জুটি।

সম্প্রতি বেশকিছু সংবাদমাধ্যমে জানা যায়, পাক-ভারত তারকা জুটি বর্তমানে একসঙ্গে থাকেন না। তারা আলাদা আলাদা বাড়িতে থাকছেন। যদিও দুজনেই সন্তানের প্রতি সমান যত্নশীল। সম্পর্ক তলানিতে পৌঁছানোর জন্য বলা হচ্ছে, শোয়েব মালিক নাকি ‘পরকীয়ায়’ জড়িয়েছেন। সম্প্রতি তাদের সন্তান ইজহান মির্জা মালিকের জন্মদিন পালন করা হয়। ছেলের জন্মদিনে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছবি শেয়ার করেন শোয়েব মালিক।

জন্মদিনের ছবির ক্যাপশনেও জল্পনা ছড়ান তিনি। ইঙ্গিতপূর্ণ সেই ক্যাপশনে শোয়েব লিখেন, ‘যখন তুমি জন্মেছিলে, তখন আমরা অনেক বেশি নম্র হতে পেরেছিলাম। জীবন সত্যিকারের কোনো অর্থ খুঁজে পেয়েছিল যেন! আমরা একসঙ্গে নাও থাকতে পারি। প্রতিদিন সাক্ষাৎ নাও হতে পারে। তবে বাবা তোমার কথা সবসময় খেয়াল করে। প্রতি সেকেন্ডে তোমার হাসি মনে পড়ে যায় বাবার। তোমার সব ইচ্ছা যেন আল্লাহ পূরণ করেন।’

এদিকে বিভিন্ন সময়ে সানিয়া মির্জার একাধিক ইনস্টাগ্রামের পোস্টেও কঠিন সময়ের মধ্যদিয়ে যাওয়ার ইঙ্গিত দেয়া হয়েছে। সম্প্রতি ইনস্টাগ্রামে একটি পোস্টে তাৎপর্যপূর্ণ মন্তব্য করতে দেখা গেছে সানিয়াকে। তিনি লিখেন, ‘ভাঙা হৃদয় কোথায় যায়? স্রষ্টা খুঁজতে!’

এরপরেই অনুসন্ধান শুরু হয়। অনুসন্ধানে শোয়েব মালিকের ম্যানেজমেন্ট দলের একজন জানান, তাদের ডিভোর্স হয়ে গেছে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক সেই ব্যক্তি ইনসাইডস্পোর্টসকে জানান, ‘হ্যাঁ, তারা এখন আনুষ্ঠানিকভাবেই ডিভোর্সড। আমি এর চেয়ে বেশি কিছু বলতে পারব না। তবে আমি নিশ্চিত করছি, তারা আলাদা হয়ে গেছে।’

এর আগে ‘শোয়েবের সঙ্গে দুই নারীর সম্পর্ক নিয়ে’ ভারতীয় সংবাদমাধ্যমে খবর প্রকাশিত হয়েছিল। এই দুই জনের মধ্যে প্রথমজন পাকিস্তানি অভিনেত্রী আয়েশা ওমর। ২০২১ সালে একটি ম্যাগাজিনের জন্য ফটোশুটে একসঙ্গে দেখা যায় শোয়েব এবং আয়েশাকে। তারপর থেকেই অভিনেত্রীর সঙ্গে জড়িয়ে পড়ে পাক ক্রিকেটারের নাম।

এদিকে আয়েশা ছাড়া অন্য এক পাক অভিনেত্রীর সঙ্গেও শোয়েবের সম্পর্ক নিয়ে জল্পনা শুরু হয়েছিল। চলতি বছরের শুরুর দিকে পাকিস্তানের জনপ্রিয় অভিনেত্রী মাহিরা খানের সঙ্গে শোয়েবের নাম জড়ায়। মাহিরার সঙ্গে ইনস্টাগ্রাম লাইভে একবার আড্ডায় বসেছিলেন শোয়েব। সানিয়া মির্জা ও শোয়েব মালিকের বিয়ে হয় ২০১০ সালের ১২ এপ্রিল। ক্রীড়া জগতের অন্যতম জনপ্রিয় দম্পতি হিসেবে পরিচিত তারা। ভারত-পাকিস্তান জুটির একমাত্র সন্তান ইজহান মির্জা মালিক।

Leave a Comment