হিজাব না পরায় সাক্ষাৎকার দিলেন না ইরানের প্রেসিডেন্ট

শুধুমাত্র হিজাবের কারণে ইরানের প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম রাইসির সাক্ষাৎকার নিতে পারেননি সিএনএনের সাংবাদিক ক্রিস্টিন আমানপোর।

জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের ৭৭তম অধিবেশনে যোগ দিতে নিউইয়র্ক সফররত রাইসির শর্ত ছিল, সাক্ষাৎকারের সময় আমানপোরকে হিজাব পরতে হবে। কিন্ত তাতে আপত্তি জানান আমানপোর। এরপর সাক্ষাৎকারটি বাতিল হয়ে যায়।

তবে সিএনএন বলছে, আমানপোর হিজাব পরতে আপত্তি করায় ইরানের প্রেসিডেন্ট সাক্ষাৎকারটি বাতিল করেন। আমানপোর বলছেন, অতীতে ইরানের বাইরে সাক্ষাৎকার নেওয়ার সময় সে দেশের কোনো প্রেসিডেন্টই এ ধরনের অনুরোধ কখনো করেননি। এই সাংবাদিক আরও বলেন, রাইসির ঘনিষ্ঠজনদের একজন তাঁকে বলেছেন, ইরানের বর্তমান পরিস্থিতির কারণে এ শর্ত দেওয়া হয়েছে।

বর্তমানে সারাবিশ্বেই হিজাব ইস্যু নিয়ে তর্ক বিতর্ক চলছে। বিগত ১ সপ্তাহ জুড়ে প্রতিদিনই দেশজুড়ে বিভিন্ন স্থানে ইরানের নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যদের সঙ্গে বিক্ষোভকারীদের সংঘর্ষ হয়েছে এবং এখনও হচ্ছে। তবে এই ঘটনার পরপরই সিএনএনের সাংবাদিক আমানপোর বলেন, সাক্ষাৎকার নেওয়ার জন্য তিনি প্রস্তুতি নিয়ে ফেলেছিলেন। এর মধ্যেই ইরানের প্রেসিডেন্টের এক সহযোগী বলেন, রাইসি তাঁকে (আমানপোর) হিজাব পরতে অনুরোধ করেছেন।

এক টুইটার পোস্টে আমানপোর এ প্রসঙ্গে বলেন, ‘আমরা নিউইয়র্কের বাসিন্দা। এখানে মাথায় হিজাব পরার কোনো আইনি বাধ্যবাধকতা বা প্রথা নেই।’

আমানপোরের ভাষ্য মতে, রাইসির সহযোগীরা তাঁকে স্পষ্ট করে বলে দেন, তিনি হিজাব না পরলে সাক্ষাৎকার হবে না। হিজাবকে সম্মানের বিষয় বলে উল্লেখ করা হয়। ইরানের প্রেসিডেন্টের এমন অনুরোধকে নজিরবিহীন ও অপ্রত্যাশিত শর্ত উল্লেখ করেন আমানপোর। পরে এই মার্কিন উপস্থাপক তাঁর একটি ছবি প্রকাশ করেছেন। সেখানে দেখা গেছে, হিজাববিহীন অবস্থায় একটি খালি চেয়ারের সামনে বসে আছেন তিনি। ওই চেয়ারে বসে রাইসির যুক্তরাষ্ট্রে প্রথম কোনো সাক্ষাৎকার দেওয়ার কথা ছিল।

Leave a Comment