খরার পরে এবার তিন দেশে ঝড়, ১৩ জনের মৃত্যু

ভারী বৃষ্টি ও ভূমিধসের পর অস্ট্রিয়ার কারিনথিয়া অঞ্চলের কিছু অংশ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছেছবি: রয়টার্স
প্রচণ্ড তাপপ্রবাহ এবং খরার পর এবার শক্তিশালী ঝড়ের কবলে পড়েছে ইউরোপের মধ্যাঞ্চল ও দক্ষিণাঞ্চল। ইতালি, অস্ট্রিয়া ও ফরাসি দ্বীপ কর্সিকাতে ঝড়ে তিন শিশুসহ কমপক্ষে ১৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। খবর বিবিসির।

বেশির ভাগের মৃত্যু হয়েছে উপড়ে পড়া গাছের নিচে চাপা পড়ে। ইউরোপের বিভিন্ন অংশে কয়েক সপ্তাহ ধরে বিরল ধরনের উষ্ণ ও শুষ্ক আবহাওয়া চলছে। এর মধ্যেই আঘাত হেনেছে শক্তিশালী ঝড়।

ফ্রান্সের কর্সিকা দ্বীপে ঘণ্টায় ২২৪ কিলোমিটার পর্যন্ত বেগে বাতাস বয়ে গেছে। এতে গাছপালা উপড়ে পড়েছে এবং বাড়িঘর ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। ভারী বৃষ্টি আর ঝোড়ো বাতাসের কারণে দ্বীপের অবকাশ শিবিরগুলো তছনছ হয়ে গেছে।

কর্তৃপক্ষ বলছে, দ্বীপ এলাকায় একটি অবকাশ শিবিরের ওপর গাছ পড়ে ১৩ বছর বয়সী এক কিশোরীর মৃত্যু হয়েছে। একই ঘটনায় প্রাপ্তবয়স্ক এক ব্যক্তিও মারা গেছেন। ঝড়ে বিচ হাটের (সৈকতে স্থাপিত বিশেষ কুটির) চালা উড়ে গিয়ে একটি গাড়িতে আছড়ে পড়ার পর ওই গাড়ির বয়স্ক এক নারী আরোহীর মৃত্যু হয়েছে।

এ ছাড়া সাগরে এক জেলে এবং নৌকা চালানোর সময় এক নারী মারা গেছে।
পরে ফরাসি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী জি রাল্ড ডারমানিন কর্সিকা দ্বীপে ঝড়ের ক্ষয়ক্ষতি দেখতে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। ঝড়ে ছয়জনের মৃত্যু হওয়ার খবর নিশ্চিত করেছেন তিনি।
স্থলপথ ও সাগরপথে আরও অনেকে আহত হয়েছেন।

Leave a Comment