IPS ডিসপ্লে কি? ভালো এবং খারাপ দিক

একটি স্মার্ট ফোন ব্যবহার করার সময় আমরা ফোনের যে অংশ সবথেকে বেশি দেখি তা হলো ডিসপ্লে। এই ডিসপ্লেতে ফোনের প্রসেসর এ চলমান প্রোগ্রাম এর গ্রাফিক্স ভার্সন দেখেই আমরা স্মার্ট ফোন অপারেট করি। ডিসপ্লে তে আমরা আমরা বিভিন্ন টেক্সট, আইকন, ইমেজ, কালার, ইত্যাদি দেখতে পাই। এতো ডিসপ্লে এর খুব সাধারণ পরিচয়। কিন্তু আজকের পোস্টে আমরা IPS ডিসপ্লে সম্পর্কে বিস্তারিত ভাবে জানবো। IPS ডিসপ্লে কিভাবে কাজ করে চোখের জন্য ভালো না খারাপ সে সম্পর্কেও জানানোর চেষ্টা করব। পাশাপাশি IPS ডিসপ্লে সম্পর্কিত বিভিন্ন প্রশ্ন এবং তার উত্তর নিয়ে থাকবে আজকের এ আর্টিকেল।

সবার আগে IPS ডিসপ্লে এর পরিচয় দিয়ে শুরু করি।

IPS ডিসপ্লে কি?

IPS ডিসপ্লে সম্পর্কে জানতে হলে সর্বপ্রথম জানতে হবে এলসিডি ডিসপ্লে সম্পর্কে। এলসিডি এর পূর্ণরূপ লিকুইড কৃষ্টাল ডিসপ্লে। IPS মূলত এলসিডি ডিসপ্লের উন্নত বা আধুনিক রূপ। অর্থাৎ, এলসিডি ডিসপ্লের কিছু ডেভলপ করে IPS ডিসপ্লে বানানো হয়েছে। একটি IPS ডিসপ্লেতে 2 টি কাচের পর্দার মাঝে লিকুইড ক্রিস্টাল পদার্থ স্যান্ডউইচ আকারে থাকে। এই লিকুইড ক্রিস্টাল পদার্থ বা এর অণুসমূহ কাচের সাথে সমান্তরালে অবস্থান করে। ডিসপ্লের মধ্যে এমন এক ধরনের ইলেকট্রিক ফিল্ড তৈরি করা হয় যার দ্বারা এই লিকুইড কৃষ্টাল পদার্থ এর অণুসমূহ সমান্তরাল থেকে 90 ডিগ্রী কোনে পরিবর্তিত হতে পারে। যার ফলে ডিসপ্লে পিক্সেল গুলো বিভিন্ন দশায় হয় পরিণত হয়ে বিভিন্ন ছবি তৈরি করে।

IPS ডিসপ্লে কিভাবে কাজ করে?

আসলে IPS ডিসপ্লে এর পিক্সেল এর নিচে এক বা একাধিক LED লাইট থাকে। যা ডিসপ্লে এর লাইট সোর্স হিসেবে কাজ করে। ওই লাইট যখন লিকুইড কৃষ্টাল পদার্থের মধ্যে দিয়ে আসে তখন বিভিন্ন ছবি আকারে দেখা যায়।

IPS ডিসপ্লে এর সুবিধা

বেশ কিছু কারণে IPS ডিসপ্লে সেরা হিসেবে মানা হয়। যেমন

  1. ভিউয়িং অ্যাঙ্গেল ভালো
  2. একুরেট কালার রিপ্রোডাকশন
  3. ব্রাইটনেস
  4. দীর্ঘায়ু

ভিউয়িং অ্যাঙ্গেল ভালো

IPS ডিসপ্লে তে ভিউয়িং অ্যাঙ্গেল যেকোনো ডিসপ্লের তুলনায় বরাবরই ভাল হয়ে থাকে। কিছু কিছু ডিসপ্লেতে দেখা যায় একটু সাইড থেকে তাকালে নেগেটিভ কালার দেখা যায়। অর্থাৎ ডিসপ্লেতে অরিজিনাল যে কালার শো করে তা দেখা যায় না। কিন্তু আইপিএল ডিসপ্লের ক্ষেত্রে তা ঘটে না। ডিসপ্লের যেকোনো পাশ দিয়ে অনেকটা কোন করে তাকালেও পরিষ্কার ছবি দেখতে পাওয়া যায়। IPS ডিসপ্লে ভিউয়িং অ্যাঙ্গেল যে কোন দিক থেকে 178 ডিগ্রি পর্যন্ত হতে পারে। যা যেকোনো ডিসপ্লে এর সর্বাধিক ভিউয়িং অ্যাঙ্গেল।

wide viewing angle of ips panel


স্মার্টফোনের ক্ষেত্রে এটি অনেকটা প্রয়োজনীয় একটি ফিচার। স্মার্টফোনে ভিডিও দেখার সময় ভিউয়িং অ্যাঙ্গেল খারাপ থাকলে খারাপ এক্সপেরিয়েন্স দিতে পারে। তাই IPS ডিসপ্লে ভিউয়িং অ্যাঙ্গেল এর দিক থেকে সেরা ডিসপ্লে হিসেবে মানা হয়।

Read More: সেরা ক্যামেরা ফোন কেনার আগে যা যা জানা জরুরী

একুরেট কালার রিপ্রোডাকশন

ডিসপ্লের মধ্যে একমাত্র IPS ডিসপ্লে একুরেট কালার দেখাতে পারে। এমোলেড বা সুপার এমোলেড ডিসপ্লের ক্ষেত্রে আমরা দেখতে পাই তা অতিরিক্ত রঙিন কালার শো করে। যদিও তা দেখতে ভালো লাগে। তবে এমোলেড ডিসপ্লে কখনোই ট্রু কলার দেখাতে পারেনা। কিন্তু এখন কথা হচ্ছে, একুরেট কালার দেখার প্রয়োজনীয়তা কি?

2 photos with different color accuracy and tone

যারা স্মার্টফোনে মাল্টিমিডিয়া কনটেন্ট নিয়ে কাজ করেন (যেমন ফটো এডিটিং বা ভিডিও এডিটিং) তাদের জন্য ট্রু কালার বা একুরেট কালার দেখাটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ হয়ে যায়। কারণ ফটো বা ভিডিও এডিটিং এর ক্ষেত্রে কালার নিয়ে কাজ করতে হয়। কিন্তু আপনি যদি সঠিক কালার না দেখে কাজ করেন সেটা কখনোই ভালো ফলাফল দিতে পারবে না। কারন আপনার ডিসপ্লে তে ওই কালার ঠিক দেখাচ্ছে কিন্তু অন্য ডিসপ্লেতে ছবি কম কালারফুল লাগবে।

যেমন AMOLED ডিসপ্লে এমনিতেই অনেক কালারফুল হয়ে থাকে। সে ক্ষেত্রে কালার টোন নিয়ে কাজ করার ক্ষেত্রে আপনি ছবিটিকে কালারফুল দেখতে পাবেন। কিন্তু ওই একই ছবি যখন কোন IPS ডিসপ্লে তে দেখা হবে তখন ছবি কম কালারফুল লাগবে। সেক্ষেত্রে আপনি যদি সঠিক রঙ দেখে ফটো বা ভিডিও এডিট করেন তবে অন্য যেকোন ডিসপ্লেতে ওই কনটেন্ট কালারফুল দেখাবে।

ব্রাইটনেস

সূর্যের আলোতে বা অতিরিক্ত আলোকিত পরিবেশে IPS ডিসপ্লে তুলনামূলক উজ্জ্বল দেখায়। সরাসরি সূর্যের আলোতে একটি IPS ডিসপ্লে ও একটি অ্যামোলেড ডিসপ্লের ফোন কে একই ব্রাইটনেস রাখলে অ্যামোলেড ডিসপ্লের তুলনায় IPS ডিসপ্লেতে উজ্জল ছবি দেখা যাবে। এটি IPS ডিসপ্লে এর একটি ভালো দিক।

দীর্ঘায়ু

IPS ডিসপ্লে অন্য যেকোনো ডিসপ্লের থেকে বেশি দিন টিকে থাকে। এমোলেড ডিসপ্লের ক্ষেত্রে আমরা দেখতে পাই তা বেশিদিন ব্যবহার করা যায় না। বার্নিং ইসু চলে আসে। কিন্তু IPS ডিসপ্লে তে বার্নিং ইসু সচরাচর দেখা যায় না। পাশাপাশি এমোলেড ডিসপ্লে এর পিক্সেল অতিরিক্ত তাপে নষ্ট হয়ে যায় কিন্তু IPS ডিসপ্লের ক্ষেত্রে অতিরিক্ত তাপমাত্রায় এর পিক্সেল টিকে থাকতে পারে।

durability of IPS display

IPS ডিসপ্লে অ্যামোলেড ডিসপ্লে এর তুলনায় বেশি আঘাত সহ্য করতে পারে। একটি স্মার্টফোন হাত থেকে পড়ে গেলে বা কোনোভাবে আঘাত লাগলে সর্বপ্রথম যা নিয়ে আমাদের চিন্তা হয় তা হলো ডিসপ্লে এমোলেড ডিসপ্লে IPS ডিসপ্লে এর তুলনায় কম আঘাতেই নষ্ট হয়ে যায়। কিন্তু IPS ডিসপ্লে নষ্ট হওয়ার সম্ভাবনা কম থাকে।

IPS ডিসপ্লে অসুবিধা

IPS ডিসপ্লে আর বেশ কিছু অসুবিধা রয়েছে। তারমধ্যে উল্ল্যেখযোগ্য কিছু সমস্যা সম্পর্কে নিচে উল্লেখ করা হলো:

  1. কন্ট্রাস্ট রেশিও কম
  2. স্ক্রিন লাইট ব্লিডিং IPS গুলো বেশি হয়

কন্ট্রাস্ট রেশিও কম

IPS ডিসপ্লে তে বরাবরই ছবির কনট্রাস্ট তুলনামূলকভাবে কম পাওয়া যায়। যার ফলে ডিসপ্লেতে দেখানো ছবির কালো অংশ একেবারে কালো দেখা যায় না। অনেকটা গ্রে কালার দেখা যায়। এর প্রধান কারণ ব্যাকলিট টেকনোলজি। তবে বেশ কিছু IPS ডিসপ্লে আছে যার কনট্রাস্ট লেভেল অনেক হাই। এইসব ডিসপ্লেতে ব্ল্যাক কালার অনেকটাই ব্লাক দেখা যায়। কিন্তু তবুও তা কখনোই এমোলেড ডিসপ্লের মতো হয়না। যারা কন্ট্রাস্ট রেশিও সম্পর্কে জানেন না তারা নিচের ছবিটি লক্ষ্য করুন। কন্ট্রাস্ট রেশিও বেশি থাকলে সবচেয়ে উজ্জ্বল এবং সবচেয়ে অন্ধকার বা কালো অংশের তফাৎ সবথেকে বেশি হয়।

low contrast ratio of ips lcd display

মোবাইলের প্রসেসর বা SoC কি? 2021 সালে প্রসেসর সম্পর্কে যা যা জানা আবশ্যক

স্ক্রিন লাইট ব্লিডিং IPS গুলো বেশি হয়

যারা স্ক্রীন লাইট বিল্ডিং সম্পর্কে জানেন না তারা জেনে নিন। অনেক সময় ডিসপ্লের কর্নারের এরিয়া থেকে অতিরিক্ত আলো দেখা যায়। এটি সবথেকে বেশি দৃশ্যমান হয় অন্ধকার পরিবেশে ডিসপ্লেতে অন্ধকারাচ্ছন্ন কোন ছবি দেখলে। ডিসপ্লের মাঝের অংশের তুলনায় কর্নার থেকে অতিরিক্ত আলো নির্গত হয়। এটি স্ক্রিন ব্লিডিং বা লাইট ব্লিডিং নামে পরিচিত।

IPS ডিসপ্লে তে স্ক্রীন লাইট বিল্ডিং সমস্যা বেশি দেখা যায়। এটি ঘটে মূলত IPS ডিসপ্লে তে থাকা ব্যাকলাইট টেকনোলজি এর কারণে এমোলেড ডিসপ্লে তে কখনোই লাইট বিল্ডিং সমস্যা দেখা যায় না।

screen light bleeding of ips monitor
Image From monitornerds.com

IPS ডিসপ্লেতে মাঝেমধ্যে কালো ছায়ার মত দেখা যায় যাকে ব্লাডশেড বলা হয়ে থাকে।

আমরা এতক্ষণ জানলাম, IPS ডিসপ্লে কি। পাশাপাশি IPS ডিসপ্লে কিছু ভালো এবং খারাপ দিক সম্পর্কে জেনেছি। এখন আসি IPS ডিসপ্লে সম্পর্কিত বেশ কিছু প্রশ্ন নিয়ে যা আমাদের মাথায় প্রায়সই ঘোরাফেরা করে। সেই প্রশ্ন গুলো সম্পর্কে জানবো এবং তার উত্তর নিয়ে আলোচনা করব। যা আপনাকে IPS ডিসপ্লেযুক্ত ফোন কেনার ক্ষেত্রে সিদ্ধান্ত নিতে সাহায্য করবে।

ProsCons
ভিউয়িং অ্যাঙ্গেল ভালোকন্ট্রাস্ট রেশিও কম
একুরেট কালার রিপ্রোডাকশনস্ক্রিন লাইট ব্লিডিং IPS গুলো বেশি হয়
ব্রাইটনেস
দীর্ঘায়ু

IPS ডিসপ্লে এবং এলইডি ডিসপ্লে মধ্যে পার্থক্য কি?
IPS ডিসপ্লে মূলত এলইডি ডিসপ্লে এর উন্নত ভার্শন। IPS ডিসপ্লেও এলইডি টেকনোলজি তৈরি করা হয়। কিন্তু IPS ডিসপ্লে তে এলইডি ডিসপ্লে তুলনায় উন্নত এবং একুরেট কালার দেখা যায়। পাশাপাশি IPS ডিসপ্লে এলইডি ডিসপ্লে তুলনায় ভিউয়িং অ্যাঙ্গেল বেশি পাওয়া যায়।

IPS এর পূর্ণরূপ কি?

IPS এর পূর্ণরূপ in plane switching (ইন প্লেন সুইচিং)

IPS ডিসপ্লে কি চোখের জন্য ভালো?

প্রথম কথা, কোনো ডিসপ্লেই চোখের জন্য ভালো নয়। IPS এবং এমোলেড ডিসপ্লে নিয়ে নানাজনের নানা মতামত রয়েছে। অনেকের কাছে মনে হয় IPS ডিসপ্লে এমোলেড ডিসপ্লের তুলনায় চোখের জন্য কম ক্ষতিকর। আবার অনেকেই এর উল্টোটাও ভাবেন। আমার মতামত হচ্ছে অন্ধকারাচ্ছন্ন ঘরে IPS ডিসপ্লে এমোলেড ডিসপ্লের তুলনায় চোখের উপর কম চাপ ফেলে। এটা অবশ্যই ডার্ক মোড চালু করা থাকা অবস্থার ক্ষেত্রে প্রযোজ্য। তবে ব্লু লাইট নির্গমন এর ক্ষেত্রে অ্যামোলেড ডিসপ্লে তে কম ব্লু লাইট নির্গত হয়।

এমোলেড না IPS কোনটি নেওয়া উচিত?

এই প্রশ্নের উত্তর সম্পূর্ণ নির্ভর করে আপনার চাহিদা এবং কাজের উপর। আপনি যদি একজন প্রফেশনাল কনটেন্ট ক্রিয়েটর হয়ে থাকেন সেক্ষেত্রে অবশ্যই আপনার IPS ডিসপ্লে নেওয়া উচিত। কারণ IPS ডিসপ্লে সর্বদা একুরেট কালার প্রডিউস করে। যা কনটেন্ট ক্রিয়েটরদের জন্য আদর্শ। কিন্তু আপনি যদি নরমাল ব্যবহারকারী হয়ে থাকেন সে ক্ষেত্রে আপনার বাজেটে অ্যামোলেড ডিসপ্লে থাকলে সেটির দিকে যাওয়া উচিত।

তো এই ছিল স্মার্ট ফোনের IPS ডিসপ্লে নিয়ে আমাদের আজকের ইনফরমেটিভ আর্টিকেল।